বিকল্প

বৃষ্টিভেজা তোমার শহর আজ জনশুন্য,
মর্গের তালিকায় প্ৰিয়জনেদের নাম হচ্ছে তালিকাভুক্ত,
শেষ দেখার হুকুম নেই, শুধু দূর থেকে আবেগ আদান প্রদান কাম্য,
ভিড়ে একা তুমি, খালি শহর,যা আজ মানবশূন্য,

ক্ষোভ, ক্রোধ, লালসা, কিছু কফিনবন্দি আজ,
বেঁচে থাকা জ্যান্ত শহরে জীবিত বাকিরা আজ,
শেষ বলে কিছু নেই যেখানে খালি চক্রাকার আবর্তন,
কাল কিসের সাক্ষী হতে হবে জানা নেই, বিরহে দিনের প্রবর্তন,

লড়াই ব্যক্তিত্বের, ক্ষমতার, আত্ম্যস্বার্থ সিদ্ধির,
নিঃস্বাস নেওয়ার ক্ষমতা কমলে ছাপ ছাড়ে না ঋণাত্মকতা, হয় না কিছুই বৃদ্ধি,
সবাই যত্নে রেখেছে নিঃস্বাস যন্ত্র, মাঝে কিছু বিকল হচ্ছে রোজ,
অবহেলাতে ভেঙে পড়ছে কিন্তু মৃত্যুপত্রে থাকে না বিবৃতি ও  কারণের খোঁজ,

মূল্য কাগজের, মূল্য সম্পত্তির, দেশ আজ আত্ম্যহত্যার সাক্ষী,
মূল্যহীনতার অনুভূতি কে করায়, কাগজ ও সম্পত্তিরা যে কথা বলতে পারে না ওমনি,
জনসংখ্যা অনেক, বোধয় তাই হয়তো তথ্য বিশ্লেষণের মাধ্যমে কৌশল ও নীতি তৈরী হচ্ছে,
এর মাঝে রোজই কারো না কারো প্রিয়জন ইহলোকের মায়া ত্যাগ করছে,

বাণিজ্য বিশেষজ্ঞরা এসেছেন, অর্থনীতির সামাল দিতে,
এসেছেন কত ডাক্তার, শরীর বহাল রাখতে,
মানসিক স্থিতির গুরুত্ব আজও সমাজে আসে না,
আত্ম্যহত্যার হারের দিকে গুরুত্ব কি কারো পড়ে না?

চিত্রতারকার মৃত্যুতদন্তে সোচ্চার দেশবাসী,
নিজ প্রিয়জনের মানসিক সুস্থতা ও স্থিতির খবরটা কি সবচেয়ে কম দামি?
স্বয়ংক্রীয় পদ্ধতিতে বড়ো হওয়া আমার সমাজবাসী,
নজরেই বোধয় আনে না, মন বলে কিছু হয় যেটা বাকি সবার চেয়ে দামি,

মানসিক সুস্থতা ও চিন্তাজগতে ঋণাত্মকতা ভরতে অভ্যস্ত,
চিন্তাজগতে প্রগতি এলে নিজের যে হবে কষ্ট,
ভ্রান্ত ধারণা ছড়ানো ও জীবন উপলব্ধিকে বন্ধ বদ্ধ করার প্রযুক্তি,
উপার্জন হারালে বিকল্প খুঁজতো মানুষ, আজ খোঁজে বিকল্প পথে মুক্তি,

জীবন্ত অবহেলা ও মৃত্যুর পর সম্মান, চোখের জল,
আশেপাশের মানুষরা বেশ উন্ন্যত মানের স্বার্থপরের দল,
আরেকটু স্বার্থপরতা যদি সমাজে আসতো,
খামতির সাথে প্রগতি ও সম্ভাবনার আলোচনাগুলো বোধয় স্থান পেতো,

ব্যক্তিকেন্দ্রিক স্বার্থপরতা এক প্রকারের বোকামি,
একা কোনো ব্যক্তিত্বই হয়ে উঠতে পারে না মানব সমাজে সফল ও দামি,
অন্যের গুরুত্ব উপলব্ধিমূলক কৃতজ্ঞতা নাই বা ঠাঁই পেলো,
বাৰ্তালাপের স্থান যদি আরেকটু বর্ধিত ও মুক্ত হতো,

সমস্যার মাঝে মস্তিস্ক পরিচালনা সবার সমান নয়,
কিন্তু সমস্যা ও তার গুরুত্ব উপলব্ধিমূলক দর্শনের প্রচার ও চর্চা যদি আরেকটু করা হয়,
মানবসৃষ্ট সমস্যা সমাধান মানব হাতেই সম্ভব,
বেঁচে থেকে নিজে উপেক্ষিত হলে, সমস্ত সম্ভাবনা খোঁজে পূর্ণচ্ছেদ, দেখায় বাস্তব,

জীব মূল্য নয় দামি, মানুষ তো সবার শেষ তালিকায়,
মানুষের আবেগ আজ ওষ্ঠাগত, কিন্তু চিন্তা আজও সম্পত্তির দোরগোড়ায়,
কিভাবে নিজেকে স্বল্পচাহিদায় বিপদের দিনে পরিচালনা করবো,
মেঘের আড়ালে সূর্য লুকিয়ে, বিশ্বাসটুকু যদি থাকতো,

বিশ্বাস মুছে গেছে, ছাপ নেই তার ন্যূনতম,
যদি থাকতো তাহলে কষ্ট হলে হয়তো খুঁজতো না মানুষ মৃত্যুমুখী বিকল্প,
বেশি কথা বলা মানুষগুলো দুর্বল নয়, হয়তো একটু আবেগী বেশি মাত্র,
তার কষ্ট সারাজীবন ভোগ করে, অন্য মানুষের বিরক্তি আজ কারো কাছে মৃত্যু ফরমান মাত্র,

কারণ লেখা থাকে না, আলোচনা হয় কয়েকটাদিন,
আলোচনাচক্রে সামিল হওয়া মানুষেরা বিশ্লেষণ করে হয়তো ঠিক,
ভুলে যায় মানুষ এখানে, কিছুই মনে রাখা হয়না,
যতই বলে মনে রাখা হবে, স্বভাবে, আচারে পরিবর্তন আর আসে না।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s